শিবগঞ্জ পৌরসভা বাসীর জীবনমান উন্নয়নের জন্য কাজ করবো – সৈয়দ মনিরুল ইসলাম

সারওয়ার জাহান ফরহাদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার, শিবগঞ্জ উপজেলায় ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং তারিখ শিবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন সংঘটিত হয়, নির্বাচনে নব-নির্বাচিত পৌর মেয়র মেয়র ও শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পদক সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, শিবগঞ্জ পৌরসভা বাসীর জীবনমান উন্নয়নের জন্য কাজ করতে চান।

১৪ ই মার্চ ২০২১ ইং তারিখ শপথ গ্রহণ এবং ১৫ ই মার্চ ২০২১ ইং তারিখ দায়িত্ব হস্তান্তরের পর, সৈয়দ মনিরুল ইসলাম বলেন, জনতা সাড়া দিয়েছিলো, জনতার সাড়া পেয়েই তফসিল ঘোষণার আগেই শিবগঞ্জ পৌরসভা সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হিসেবে জনগণের দূয়া নিয়েই আওয়ামীলীগ এর মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে নির্বাচন প্রচারণায় নেমেছিলাম, জনগণ পাশে ছিলো, আল্লাহর রহমতে, নিজের প্রচেষ্টা, জনগণের দূয়া ও ভালোবাসার ফলে আজ আমি শিবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ এর মনোনীত প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পেরেছি এবং শিবগঞ্জ পৌরসভা মেয়র নির্বাচিত হয়েছি।

তিনি বলেন, আমি আগেই বলেছি ,আমি মেয়র নির্বাচিত হলে মেয়র আমি নয়, মেয়র হবে শিবগঞ্জ পৌরসভার প্রতিটা সদস্য, সকলে নিজে নিজেকে পৌর মেয়র মনে করবে, প্রতিটি পয়সা ও কাজের জবাব দিহিতা থাকবে, জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পৌরসভা চলে, আমি চাই জনগণ প্রতিটি টাকার হিসেব বুঝে নিবে পৌরসভার একজন নাগরিক হিসেবে আমি সকলের সাথে আছি, সুযোগ এসেছে এখন আমরা পৌরসভাকে এগিয়ে নিতে চাই, সকল দুর্নীতিকে বিদায় করতে চাই দেখিয়ে দিতে চাই পৌরসভা কাকে বলে।

শিবগঞ্জ পৌরসভাকে আধুনিক ও মডেল পৌরসভা রুপে গোড়ে তোলার জন্য কাজ করবো,বেকারত্ব ও কর্মহীন বাংলাদেশে একটি বড় সমস্যা শিবগঞ্জ পৌরসভায় কর্মহীন ও বেকার কোও না থাকে সেজন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করবো ভেবে বিষয়টা আমি নজরদারিতে রেখেছি।

বিশেষ করে শিবগঞ্জে অনেকের হাতের কাজ ভালো, তাই তাঁতশিল্পের উন্নয়ন ঘটিয়ে সেখানে কাজে লাগাবো যার ফলে কিছু মানুষ কর্মহীন ও বেকারত্ব মুক্ত হবে এবং পৌরসভার উন্নয়ন সাধিত হবে। তাছাড়া সকলের কাজের প্রতি লক্ষ রাখবো যে ব্যাক্তি যে কাজে পারদর্শী তাকে সেই কাজে লাগিয়ে বেকারত্ব মুক্ত পৌরসভা গড়ার চেষ্টা করবো।

এলাকায় আওয়ামী লীগের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে এবং দেশ ও জনগণের স্বার্থে আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম এবং পৌরসভা মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছি, মানুষ আমাকে ভালোবেসে আমাকে ব্যাপকভাবে সাড়া ও উৎসহ দিয়েছিলো, তাদের প্রতি আমার অনেক দায়িত্ব রয়েছে। তাদের সুখ, শান্তি ও সুবিধা-অসুবিধায় পাশে থাকার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করি। নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমার এই পৌরসভার যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাব, এছাড়াও নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ও দারিদ্রতা বিমোচনে আমার ভূমিকা থাকবে সর্বোচ্চ পর্যায়ে।
এবং শিবগঞ্জ পৌরসভাকে জবাবদিহিতামূলক একটি আধুনিক ও মডেল পৌরসভা গড়তে তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।